সবুজবাগের যুব মহিলা লীগ নেত্রী মাহীর ত্রাস

0
3
#

বিশেষ প্রতিনিধি :

রাজধানীর ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপি পরিবারের এক নারী স্থানীয় কাউন্সিলরের শেল্টারে নিজেকে যুব মহিলা লীগ নেত্রী পরিচয় দিচ্ছেন। তার দাপটে প্রকৃত আওয়ামী লীগ নেতারা কোণঠাসা হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নেত্রী পরিচয়ে বেশ কিছু ছিচকে সন্ত্রাসী নিয়ে গড়ে তুলেছেন চাঁদাবাজ বাহিনী।

#

ওই নারীর আসল নাম শান্তা বেগম। কিন্তু নিজেই পরিবর্তন নতুন নাম দিয়েছেন মাহী সরকার। তার বাবার নাম আমজাদ হোসেন। শান্তা ওরফে মাহী সবুজবাগ এলাকার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জাবেদ আলী সরকারের নাতনী। ওই নারীর নাম আর স্বামী বদলের বিষয়টি এলাকায় হাস্যরসের সৃষ্টি করেছে। তার বাবা-চাচার পাঁচ ভাই সবাই বিএনপির রাজনীতি করে। তার চতুর্থ শ্বশুর বাড়ির পুরো গোষ্ঠী বিএনপি করে। গত সংসদ নির্বাচনে সে নিজেও বিএনপির সমর্থক ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাহী সরকার এতটাই ক্ষমতাধারী যে পুরুষ মানুষের গায়ে হাত তোলা তার নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বয়োজ্যেষ্ঠ এবং আওয়ামী লীগ নেতা আজিজ মোল্লা, মোকসেদসহ অনেকের গায়ে হাত তুলেছেন তিনি।

জানা গেছে, গত উপ-নির্বাচনে তিনি জিয়াউল হক জিয়ার নির্বাচন করে অতঃপর ফেসবুক এবং ফেস্টুনের মাধ্যমে নিজেকে ৭৩ নং যুব মহিলা লীগের সভাপতি বলে ঘোষণা দেয়। এর ৩/৪ মাস পর নিজেকে সবুজবাগ থানার সভাপতি ঘোষণা দেয় এবং কাউন্সিলরের অন্যতম ক্যাডার বাহিনীতে পরিনত হয়। তিনি এখন এলাকায় লেডি মাস্তান হিসেবে ব্যাপক আলোচিত। মাধ্যমিকের গন্ডি না পেরোলেও বেশভূষায় কেতাদূরস্ত মাহী সরকার বাকচাতুর্যে অত্যন্ত ধুরন্ধর ও সুযোগ সন্ধানী। মোহনীয় চেহারার সুযোগ নিয়ে সে সাইনবোর্ড সর্বস্ব ‘ইচ্ছাই শক্তি ফাউন্ডেশন’ এর নামে কথিত দানের ফটোশেসন করে সমাজের বিত্তশালীদের কাছে ছবি দেখিয়ে বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। স্থানীয় লোক হলেও ভিটেমাটিহীন মাহি সরকারের ভবঘুরে মামলাবাজ বাবা দুই রুমের এক বাসা ভাড়া নিয়ে থাকে। তার এক ভাই বাকপ্রতিবন্ধী ছিচকে চোর। তার ভাইয়ের যন্ত্রণায় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ।

স্থানীয় একাধিক সূত্র আরো জানিয়েছে, শান্তা বেগম ওরফে মাহি সরকার এলাকায় কাউন্সিলরের ছত্রছায়ায় মানিকদিয়া ওয়াপদা টেম্পু স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজি এবং কাউন্সিলরের হুকুমে জয়নাব বাগে রাস্তা নির্মাণের নামে কাঠা প্রতি ৩০ হাজার টাকা করে নিয়ে ব্যাপক চাঁদাবাজি করে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আব্দুল হালিম ভূঁইয়া নামের এক ব্যক্তি সবুজবাগ থানায় মাহীল নামে গত ১৩/০২/২০২২ তারিখে জিডি রুজু করেন। জিডি নং৫৯৫। একজন মেয়ে হয়েও জয়নব বাগে সে কাউন্সিলরের নিযুক্ত প্রতিনিধি উল্লেখ করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়েও তার ভয়ে এলাকাবাসী মুখ খুলছে না। এ বিষয় অভিযুক্ত মাহী সরকার বলেন, অভিযোগ সত্য নয়। একটি চক্র অপপ্রচার চালাচ্ছে।

Facebook Comments

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here