টিকা সংকটে ভারত

0
62
#

ডেস্ক রিপোর্ট:

ভারতে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা, তেমনি দেখা দিয়েছে টিকার সংকট। দেশটিতে জানুয়ারি মাসের মাঝমাঝি সময়ে টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর এ পর্যন্ত মাত্র তিন শতাংশ মানুষকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেয়া সম্ভব হয়েছে।

#

ভারতের বিরোধী দলগুলো আগে থেকেই অভিযোগ করে আসছিল, যে করোনা নিয়ে মোদি সরকার তেমন মাথা ঘামাচ্ছে না। দ্বিতীয় দফায় অনেককেই টিকা দেয়া সম্ভব হবে না। এবার দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্যেই সেই বিষয় ধরা পড়ল।

নরেন্দ্র মোদি যতই বলুন যে, দেশে দ্রুত টিকাকরণ হচ্ছে- বাস্তব পরিসংখ্যান বলছে, এখনও পর্যন্ত দেশটিতে মাত্র তিন শতাংশ মানুষকে টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নিতে পেরেছেন।

টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর গত একমাস ধরে বিভিন্ন রাজ্য অভিযোগ করছিল যে, প্রয়োজনীয় টিকা রাজ্যকে পাঠাতে পারছে না কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনের সময় এক সভায় এসেও প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেছিলেন, অত্যন্ত দ্রুত গতিতে টিকাকরণ হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে টিকাদান কর্মসূচি নিয়ে বৈঠক করেন মোদি। বৈঠকে প্রশাসনের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা মোদিকে জানান, এখনো পর্যন্ত গোটা দেশে দুই ডোজ টিকা দেওয়া গেছে মাত্র তিন শতাংশ মানুষকে। গত কয়েকদিনে টিকা দেওয়ার পরিমাণও কমেছে। কারণ, প্রয়োজনের তুলনায় টিকা উৎপাদনের পরিমাণ অনেকটাই কম।

কেন্দ্রীয় সরকার মার্চে যে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছিল, তাতে বলা হয়, ষাট বছরের বেশি যাদের বয়স তাদের প্রথমে টিকা দেওয়া হবে। এপ্রিলে ৪৫ এর বেশি বয়সীদের টিকার কথা জানানো হয়। মে’র শুরু থেকে ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়া শুরু হয়।

রাজ্যগুলো জানায়, প্রথম ডোজ টিকা যাদের দেওয়া হয়েছে, তাদের দ্বিতীয় ডোজের ব্যবস্থা না করে এভাবে বয়স কমানো উচিত নয়।

বস্তুত বাস্তবেও দেখা যায় দ্বিতীয় ডোজ টিকা পেতে অনেকেই সমস্যায় পড়েছেন। কারণ রাজ্যগুলোকে যথেষ্ট পরিমাণ টিকার ডোজ দিতে পারেনি কেন্দ্র। এপ্রিলের শেষ থেকেই বিভিন্ন রাজ্য টিকার সংকট শুরু হয়। কেন্দ্র থেকে আশ্বাস দিলেও অনেক রাজ্যে ১৮ বছরের উপরে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া এখনো শুরু হয়নি। দুই একটি বেসরকারি হাসপাতালই কেবলমাত্র তা দিচ্ছে।

Facebook Comments

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here