ম্যাচ সমতায় ফেরানো এমবাপের হ্যাটট্রিক

0
160
#

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চার বছর আগের বার্সেলোনার মাঠে ভরাডুবির শিকার হয়েছিলো পিএসজি। এবার সেই মাঠে এসে পুরানো প্রতিশোধ নিলো কিলিয়ান এমবাপেরা।

#

ম্যাচের শুরুতে গোল হজম করলেও ধমে যায়নি পিএসজি। খানিক সময়ের ব্যবধানে ম্যাচ সমতায় ফেরানোর পাশাপাশি হ্যাটট্রিক করে দলের বড় ব্যবধানের জয়ে অবদান রাখেন এমবাপে।

মঙ্গলবার রাতে বার্সেলোনাকে নিজেদের ঘরের মাঠে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠার পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল প্যারিসের দলটি। শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ৪-১ গোলে জয় পেয়েছে মারিও পেচেত্তিনোর শিষ্যরা।

ম্যাচের শুরু থেকে বল দখলে আধিপত্য ধরে রাখে পিএসজি। একের পর আক্রমণ স্বাগতিকদের রক্ষণের ভীত নাড়িয়ে দেন এমবাপে-ইকার্দিরা।

১৯তম মিনিটে ছয় গজ বক্সের বাঁ থেকে মাউরো ইকার্দি ওয়ান-অন-ওয়ানে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও তার দুর্বল ছুটে গিয়ে ঠেকান পেদ্রি। এরই মাঝে দু’বার সুযোগ পায় বার্সা। তবে গ্রিজম্যান বল নিয়ন্ত্রণে নিতেও বেগ পেতে হয়নি গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে।

২৭তম মিনিটে মেসির সফল স্পট কিকে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। পাল্টা আক্রমণে ডি-বক্সে ফ্রেংকি ডি ইয়ং পেছন থেকে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আসরে মেসির এটি চতুর্থ গোল। চারটিই পেনাল্টি থেকে।

পিছিয়ে পড়ে আরো আক্রমণাত্মক হয়ে উঠে পিএসজি। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে তারা। চাপ ধরে রেখে পাঁচ মিনিট পর গোলও পেয়ে যায় তারা। ডি-বক্সে মার্কো ভেরাত্তির দারুণ পাস ধরে ক্লেমোঁ লংলেকে কাটিয়ে ছয় গজ বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শটে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করেন এমবাপে।

প্রথমার্ধের বাকি সময়ে আর কোনো গোল করতে পারেনি উভয়ই। দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম পাঁচ মিনিটে দারুণ দুটি সুযোগ পায় সফরকারীরা। গতিতে বারবার বার্সেলোনার রক্ষণে ভীতি ছড়ানো এমবাপের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ার পর মোইজে কিনের শট কর্নারের বিনিময়ে ফেরান টের স্টেগেন।

চাপ ধরে রেখে ৬৫ মিনিটে এগিয়ে যায় গতবারের রানার্সআপরা। জেরার্দ পিকে বক্সের মধ্যে বল থামাতে ব্যর্থ হলে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন এমবাপে।

ছয় মিনিটের ব্যবধানে লিড ৩-১ করেন কিন। পারেদেসের ফ্রি কিক থেকে কোনাকুনি হেডে গোল করেন ইতালিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

আর ৮৫তম মিনিটে প্রতি-আক্রমণে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন এমবাপে। ইউলিয়ান ড্রাক্সলারের পাস পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে বল জালে জড়ান বিশ্বকাপজয়ী ফরোয়ার্ড।

পিএসজির জার্সিতে নকআউট পর্বে আগের নয় ম্যাচে মাত্র এক গোল করেছিলেন এমবাপে। ১০ ম্যাচে হয়ে গেল চারটি।

Facebook Comments

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here