ইশরাকের অ্যাকশন!

0
68
#

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ‘বীরউত্তম’ খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ঢাকায় বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশের লাঠিচার্জে শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। এক কর্মীকে পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়েছেন বিএনপির নেতা ইশরাক হোসেন। এ সময় ইশরাকের অ্যাকশন দেখে নেতাকর্মীরা বিএনপির শ্লোগান দিতে দেখা যায়।

#

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এই সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বক্তব্য চলাকালে পুলিশ বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর অতর্কিত লাঠিচার্জ শুরু করলে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বাধে। পুলিশের লাঠিপেটায় বিএনপির শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হন। সমাবেশস্থল থেকে যুবদলের সহসভাপতি জাকির হোসেন সিদ্দিকীসহ ২৫ জন নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করে বলে দাবি  করেছে বিএনপি। অন্যদিকে আগামী দিনে সরকার পতনের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

পুলিশের লাঠিচার্জে আহত বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেনের অবস্থা গুরুতর। ডা. জাহিদ ও বিএনপি নেতা নাজিমউদ্দিন আলম, আবদুস সালাম আজাদসহ অনেক নেতা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে পুলিশ দাবি করেছে, এ ঘটনায় তাদের আটজন সদস্য আহত হয়েছেন। শাহবাগ থানার ওসি মামুন অর রশীদ পাল্টা অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপির কর্মীরা শুরুতেই পুলিশের ওপর চড়াও হয়ে আঘাত করলে পুলিশ ‘অ্যাকশনে’ যায়। পরে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় তিনি নিজেও পায়ে আঘাত পেয়েছেন বলে জানান।

জানা গেছে, ড. মোশাররফ হোসেনের বক্তব্য চলাকালে পুলিশ এসে বক্তব্য বন্ধ করতে বললে পুলিশের সঙ্গে কয়েকজন নেতা-কর্মীর কথার কাটাকাটি হয়। এ সময় নেতা-কর্মীদের ওপর ব্যাপক লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। এতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হন। আটক করা হয় অন্তত ২৫ জনকে।

বিএনপির সমাবেশে পুলিশের হামলার প্রতিবাদে গত রাতে মশাল মিছিল করেছে দলটি। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদের নেতৃত্বে রাজধানীর মহাখালী চেয়ারম্যান বাড়ি থেকে বনানী পর্যন্ত এই মিছিল হয়। ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা তারিকুল ইসলাম তেনজিং, গোলাম কিবরিয়া, ফারুক আহমেদ, সুমনসহ বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এতে অংশ নেন।

এ সময় ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনকে পুলিশের হাতে আটক কয়েকজন কর্মীকে ছিনিয়ে নিতে দেখা যায়। এ ছাড়াও ইশরাক আহত কয়েকজন কর্মীকে তার গাড়িতে করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

Facebook Comments

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here