চোখের জলে বিদায় সোনাইমুড়ীর কনস্টেবল লোকমানের

0
213
#

মোঃ লোকমান হোসেন। ১৯৮১ সালে যোগদান দেন বাংলাদেশ পুলিশে। তিনি ছিলেন কর্তব্যের প্রতি অবিচল আনুগত্য। ১১ জানুয়ারী দীর্ঘ প্রায় চার দশকের কর্মজীবন শেষ হয়েছে।তার সহকর্মীরা চোখের লোনা জলে মেশানো ভালবাসায় সিক্ত করে তাকে বিদায় সংবর্ধনা দিলো।

কনস্টেবল মোঃ লোকমান হোসেন এর অবসরে যাওয়া উপলক্ষে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ এক সংবর্ধনার আয়োজন করে। সহকর্মীরা স্মারক উপহার ও ক্রেস্ট তুলে দেন তার ও তার সহধর্মীনির হাতে।

#

পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর হোসেনের পক্ষে ৩ লাখ ৬৫ হাজার ২‘শ ২০ টাকার লাম্প গ্র্যান্ট চেক তুলে দেন প্রধান অতিথি অতিঃ পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) দীপক জ্যোতি খীসা। সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার চাটখিল সার্কেল এ.এন.এম সাইফুল আলম খাঁন, অফিসার ইনচার্জ চাটখিল থানা মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, সোনাইমুড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) জিসান আহমেদ।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি সফল একজন পিতা মোঃ লোকমান হোসেন। পাঁচ ছেলে মেয়ের মধ্যে তার দুই মেয়ে ও এক ছেলে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। এক ছেলে স্নাতকোত্তর ও আরেক ছেলে দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত। বিদায়ী বক্তব্যে লোকমান যখন তার চাকুরী জীবনের খন্ড খন্ড চিত্র উপস্থাপন করছিলেন তখন অনুষ্ঠানস্থলে বার বার আবেগঘন পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছিল। তন্ময় হয়ে সবাই শুনছিলেন দৃঢ়চেতা ও কর্তব্যের প্রতি অবিচল লোকমানের যাপিত জীবনের গল্প। আজ ১২ জানুয়ারী ফুলসজ্জিত গাড়িতে করে তাকে তার নিজ বাড়ী কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ থানার খিলা গ্রামে পৌঁছে দেওয়া হয়।

হাজারো লোকমান হোসেন তাদের ত্যাগ ও আত্মনিবেদনের বিনিময়ে বাংলাদেশ পুলিশের এগিয়ে যাওয়ার ভিত রচনা করে চলেছেন নিরন্তর। তাদের অভিনন্দন।

Facebook Comments

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here